অনুগ্রহ করে অপেক্ষা করুন...
 

যামানার লক্ষ্যস্থল ওলীআল্লাহ, যামানার ইমাম ও মুজতাহিদ, ইমামুল আ’ইম্মাহ, মুহইস সুন্নাহ, ক্বাইয়্যুমুয্ যামান, কুতুবুল আলম, হুজ্জাতুল ইসলাম, সুলত্বানুল আউলিয়া ওয়াল মাশায়িখ, ছাহিবু সুলত্বানিন নাছীর,
মাহিউল বিদয়াহ, রসূলে নুমা, গাউছুল আ’যম, সাইয়্যিদুল আউলিয়া, ইমামুল উমাম, সাইয়্যিদুল খুলাফা, আস সাফফাহ, হাবীবুল্লাহ্, আওলাদে রসূল, রাজারবাগ শরীফ-এর মুর্শিদ ক্বিবলাহ
The Daily Al Ihsan
বিশ্বের সমস্ত দেশ থেকে পঠিত আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাত এর
আক্বীদায় প্রতিষ্ঠিত একমাত্র আন্তর্জাতিক ইসলামী পত্রিকা
Arabic .  বাংলা .  Urdu .  English .  Japanese .  Swedish
১৪ মাহে শা’বান, ১৪৩৬ হিজরী, ৩ আউয়াল, ১৩৮৩ শামসি
২ জুন, ২০১৫ ঈসায়ী সন, ১৯ জৈষ্ঠ, ১৪২১ ফসলী সন
ইয়াওমুছ ছুলাছায়ি (মঙ্গলবার)
al-ihsan al-ihsan al-ihsan
al-ihsan
মুজাদ্দিদে আ’যম আলাইহিস সালাম উনার দোয়ার বরকতে মুসলমানদেরকে জুলুম নির্যাতন করার ফলে জুলুমবাজ কাফিরদের উপর খোদায়ী গজব
  • <font class='SlideCaptionBN'>প্রশান্ত মহাসাগরে অবস্থান করা ঘূর্ণিঝড় ‘অ্যান্ড্রেস’ আরো শক্তি বৃদ্ধি করে ক্যাটাগরি-৪ মাত্রার হ্যারিকেনে রূপান্তরিত হয়েছে।</font>
  • <font class='SlideCaptionBN'>জুন মাসে অসময়ে প্রবল তুষারপাত চলছে নরওয়েতে।</font>
Al Baiyinaat : e Version Al Ihsan : e Version
সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ উপলক্ষে প্রকাশিত
পোষ্টার, স্ক্রিনসেভার, ওয়ালপেপার সমুহ ডাউনলোড করুন।
বিশ্বের সমস্ত দেশ ও শহর থেকে পঠিত
ইসলামী শরীয়ত সম্মত একমাত্র পত্রিকা
"দৈনিক আল ইহসান"

বিজ্ঞাপনের মুল্য তালিকা
নামাজের সময়সূচী
জেলা : ঢাকা ও পার্শ্ববর্তী এলাকা
ওয়াক্তশুরুশেষ
সাহ্‌রীর শেষ সময়০৩:৪১
ফজর০৩:৪৬০৫:০৯
ইশরাক০৫:৩৩০৭:১২
চাশত্‌০৭:১৩১০:৫৭
জাওয়াল১১:৫৭যোহর নামায পড়ার পূর্ব পর্যন্ত
যোহর১১:৫৭০৪:৩৬
আছর০৪:৩৭০৬:২৪
মাগরিব০৬:৪৭০৮:০৮
আওয়াবীনবাদ মাগরিব০৮:০৮
ইশা০৮:০৯০৩:৪১
তাহাজ্জুদ১১:১৪০৩:৪১
আগামীকাল ফজর০৩:৪৬০৫:০৯
আগামীকাল সূর্যোদয়০৫:১০-
আজ সূর্যোদয়০৫:১০-
আজ সূর্যাস্ত০৬:৪২-
সূত্র: গবেষণা কেন্দ্র- মুহম্মদিয়া জামিয়া শরীফ, ঢাকা

 
Saieedul Aaiyad
Saieedul Aaiyad
Saieedul Aaiyad
RajarbagShareef.net
Radio 'Al-Hikmah'
Special Days in Islam
majlisu-ruiatil-hilal
International Voice Room
Noorun Alaa Noor
Donate for Daily Al Ihsan Shareef Donate for Daily Al Ihsan Shareef


» কোরআন শরীফের তরজমা ও তাফছির(তরজমায়ে মুজাদ্দিদে আজম)
» ফিক্বহুল হাদিস ওয়াল আছার
» আহ্‌লে সুন্নাত ওয়াল জামাতের আক্বীদা
» মারিফাতুছ ছাহাবা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুম
» আউলীয়া-ই-কিরাম রহমতুল্লাহী আলাইহিম
 
» আত-তাক্বউইমুশ শামসি
» ইসলামের বিশেষ দিন সমূহ
» আহ্‌কামু রমাদ্বানাল মুবারক
» আহ্‌কামুয্‌যাকাত
(যাকাতের হুকুম-আহ্‌কাম)
» বিষয় ভিত্তিক বিশেষ প্রবন্ধ
 
» মাসিক আল বাইয়্যিনাত
» ওয়াজ শরীফ
» ক্বাছীদা আনজুমান
» মক্ববুল মুনাজাত শরীফ
» প্রকাশিত কিতাব সমূহ
 
» ফতওয়া বিভাগ
» সুওয়াল জাওয়াব বিভাগ
» মাসের ফজিলত ও প্রাসঙ্গিক আলোচনা
 
» পত্রিকার মূল সংস্করণ
 
» আপনার মতামত পাঠান
» আর্কাইভ থেকে পড়ুন
 
» সুন্নতি সামগ্রী
» কবিতা
» সবুজ বাংলা ব্লগ

 
মুজাদ্দিদে আ’যম হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম-উনার ক্বওল শরীফ
নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “যখন তোমরা লাইলাতুন নিছফি মিন শা’বান অর্থাৎ পবিত্র বরাত শরীফ উনার রাত্র পাবে তখন সারারাত ইবাদত করো এবং পরের দিন রোযা রাখো।”

আজ দিবাগত রাতটিই পবিত্র বরাত শরীফ উনার বরকতময় রাত।

যা মুসলমান উনাদের জন্য দোয়া কবুলের রাত, ক্ষমা বা মাগফিরাতের রাত, তওবা কবুলের রাত, বিপদ-আপদ থেকে নাজাত পাওয়ার রাত এবং এক বছরের হায়াত-মউত ও রিযিকের ফায়ছালার রাত।

তাই প্রত্যেক পুরুষ-মহিলা, ছেলে-মেয়ে সবার জন্য দায়িত্ব-কর্তব্য হচ্ছে, খালিছভাবে তওবা করতঃ সারারাত ইবাদত-বন্দেগী, যিকির-ফিকির ও দোয়া-মুনাজাতে কাটানো এবং পরের দিন রোযা রাখা।

আর বাংলাদেশ সরকারসহ প্রত্যেক মুসলিম ও অমুসলিম সরকারের উচিত ছিলো, পবিত্র লাইলাতুল বরাত শরীফ উপলক্ষে কমপক্ষে তিনদিন বাধ্যতামূলক ছুটি ঘোষণা করা। পাশাপাশি পবিত্র লাইলাতুল বরাত শরীফ উদযাপনের লক্ষ্যে সরকারের পক্ষ থেকে যথাযথ ও সার্বিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা।
আপনাদের মতামত
মহাপবিত্র ইসলাম উনার বিশেষ রাতসমূহের মধ্যে পবিত্র শবে বরাত শরীফ একটি অন্যতম ও বরকতময় পবিত্র রাত
দোয়া কবুল ও অশেষ নিয়ামত সম্ভারের বরকতময় রাত্রি মুবারক হচ্ছে‘পবিত্র লাইলাতুল বরাত শরীফ’
পবিত্র লাইলাতুল বরাত শরীফ উনার মধ্যে বেশুমার উম্মতে হাবীবী উনাদেরকে ক্ষমা করা হয়
যদি কেউ দুনিয়া ও আখিরাতে কামিয়াবী চায়
সে যেন জীবনে অন্ততঃ একখানা পবিত্র লাইলাতুল বরাত
শরীফ রাত্রি মুবারক রাজারবাগ দরবার শরীফ উনার
মামদূহ সাইয়্যিদুনা হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস
সালাম উনার পবিত্র ছোহবত মুবারকে কাটায়
আফসুস! ওইসব ব্যক্তির জন্য, যারা পবিত্র
‘পবিত্র লাইলাতুল বরাত’ পাওয়ার পরও এ রাতে
তওবা, ইস্তিগফার, ইবাদত-বন্দেগী হতে গাফিল থাকে
‘পবিত্র লাইলাতুল বরাত শরীফ’ পালন করাকে এবং এদিনে রোযা রাখাকে বিদয়াত বলা সুস্পষ্ট কুফরী
পবিত্র রমাদ্বান শরীফসহ অন্যান্য মাসে রোযা রাখার ফযীলত (৪) পবিত্র শাবান শরীফ
সাইয়্যিদে মুজাদ্দিদে আ’যম, রাজারবাগ শরীফ উনার মামদূহ মুর্শিদ ক্বিবলা হযরত ইমাম আস সাফফাহ আলাইহি সালাম উনার বেমেছালভাবে পবিত্র লাইলাতুল বরাত উদযাপন প্রসঙ্গে
যারা বলে পবিত্র ‘শবে বরাত শরীফ’ শব্দটি পবিত্র কুরআন শরীফ ও পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার কোথাও নেই, তাই এটা পালন করা বিদয়াত- তারা নিরেট জাহিল ও প্রতারক
পবিত্র শা’বান শরীফ মাস উনার মধ্য তারিখের রাতটি ‘লাইলাতুল ক্বিসমাহ’ বা ভাগ্য রজনীর রাত ॥ এ রাতে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো ফায়ছালা করা হয়
মনে রাখবেন- দোয়া কবুলের খাছ রজনী পবিত্র লাইলাতুল বরাত শরীফ
পবিত্র লাইলাতুল বরাত শরীফ; গুনাহ থেকে তওবা করে মুক্তি লাভ করার বরকতময় রাত
পবিত্র লাইলাতুল বরাত শরীফ যে কারণে সর্বোচ্চ মর্যাদার আসনে অধিষ্ঠিত
যেসব ধর্মব্যবসায়ী উলামায়ে ‘সূ’রা পবিত্র লাইলাতুল বরাত শরীফ উনার বিরোধিতা করে,
পবিত্র কুরআন শরীফ এবং পবিত্র হাদীছ শরীফ উনাদের দৃষ্টিতে তারা কাট্টা কাফির ও মুরতাদ
সম্পাদকীয়
সব প্রশংসা খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার জন্য। যিনি কোনো কিছুই খেলাচ্ছলে সৃষ্টি করেননি। সকল ছলাত শরীফ ও সালাম মুবারক সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, খাতামুন্ নাবিইয়ীন নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার প্রতি। যাঁর উসীলায় আখিরী উম্মতগণ পেয়েছেন বিশেষ মাস, খাছ দিন তথা মুহূর্ত।
পবিত্র শা’বান শরীফ মাস উনার ১৪ তারিখ দিবাগত রাত অর্থাৎ আজকের দিবাগত রাত হচ্ছে ‘পবিত্র শবে বরাত’ বা ‘পবিত্র লাইলাতুল বরাত’। এ রাতের ফযীলত, নাজাত ও বরকতের কথা, দোয়া কবুলের বা দোয়া দ্বারা স্বীয় তাক্বদীর পরিবর্তন করার কথা প্রায় সকলেই অবগত।
আখিরী উম্মতগণ উনাদের প্রতি মহান আল্লাহ পাক উনার যেসব অমূল্য নিয়ামত মুবারক রয়েছে, তার মধ্যে পবিত্র লাইলাতুল বরাত একটি। বরাত বা তাক্বদীর ফায়ছালার রাত হিসেবে এ রাতটি বিশেষ তাৎপর্যমন্ডিত। কাজেই বিশেষ আমল, দোয়া ও ইস্তিগফারের মাধ্যমে এ রাতের ফযীলত হাছিলে প্রবৃত্ত হওয়া উচিত।
প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, তাক্বদীর খুব স্পর্শকাতর বিষয়। তাক্বদীর সম্পর্কিত বিভ্রান্তিকর আলোচনা অতীতের অনেক জাতিকে ধ্বংস করে দিয়েছে বলে পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে উল্লেখ আছে। তবে তাক্বদীর দোয়া দ্বারা পরিবর্তিত হয়- তাও পবিত্র হাদীছ শরীফ উনারই কথা।
সুতরাং পবিত্র শা’বান শরীফ মাস উনার চৌদ্দ তারিখ দিবাগত রাত্রিতে যখন মানুষের জন্ম-মৃত্যু, রিযিক বণ্টনসহ, খাছ রহ্মত নাযিল করা হয়, তখন সে রাত্রিতে ইবাদত-বন্দেগীতে মশগুল থেকে স্বীয় তাক্বদীরকে মুবারক করাই বুদ্ধিমানের কাজ। যদিও কোনো কোনো মহল মনে করে যে, পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে ‘পবিত্র শবে বরাত’ বা ‘পবিত্র লাইলাতুল বরাত’ পালনের কোনো নির্দেশনা নেই। কিন্তু আসলে তা সত্য নয়।
মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন, “এ বরকতময় রজনীতে আমার নিকট হতে প্রত্যেক হিক্বমতপূর্ণ কাজের ফায়ছালা মুবারক করা হয়।” (পবিত্র সূরা দুখান শরীফ)
বর্তমান যামানাকে আখিরেরও আখির বলতে হয়। অর্থাৎ পবিত্র ক্বিয়ামত অতি নিকটবর্তী। পবিত্র ক্বিয়ামত উনার অনেক লক্ষণই এখন প্রকাশিত ও প্রতিভাত।
নামধারী আলিম তথা ধর্মব্যবসায়ী মালানা তথা উলামায়ে ‘সূ’রা- উলামায়ে হক্কানী রব্বানী, উলামায়ে মুহাক্কিক-মুদাক্কিকগণ উনাদের- ফতওয়া মুবারক উনার বিরোধিতা করবে, এটাই ক্বিয়ামতের বড় আলামত। পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে এদেরকে ‘দাজ্জালে কায্যাবের চেলা’ বলা হয়েছে। এই চেলারা নতুন চমক তৈরির লক্ষ্যে এখন প্রচার করছে, ‘পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার মধ্যে ‘শবে বরাত’ বলতে কিছুই নেই।’ পাশাপাশি তারা আরো বলছে, ‘পবিত্র মীলাদ শরীফ, পবিত্র মাযার শরীফ যিয়ারত, পবিত্র ক্বদমবুছি- এগুলো পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার মধ্যে জায়িয নেই। নাঊযুবিল্লাহ!
কিন্তু তার বিপরীতে মহিলাদের জুমুয়াহ ও ঈদের জামায়াত, মহিলা মসজিদ, মহিলা জামায়াত, টিভি চ্যানেলে প্রোগ্রাম এসব কাজের জন্য তারা বড়ই উজ্জীবিত ও নিবেদিত।
এক্ষেত্রে একটি বিষয় খুব স্পষ্ট হয়ে উঠে যে, যেসব বিষয় মানুষকে আমলমুখী করে সেসব বিষয়কে তাদের খুব ভয়। তারা সেগুলোর ঘোর বিরোধী। আর যেসব কাজ তাদের তথাকথিত ইসলামী রাজনীতি তথা তাদের ধর্মব্যবসার সহযোগী বলে তারা মনে করে সেসব কাজের জন্য তারা খুব উদ্যোগী।
উল্লেখ্য, প্রতিবছরই পবিত্র লাইলাতুল বরাত উনার আগে বাতিল ফিরক্বার লোকেরা পবিত্র লাইলাতুল বরাত উনার বিরুদ্ধে বলে। কিন্তু প্রতিবছরই এদেশের সাধারণ মুসলমান অত্যন্ত জওক-শওক এবং মুহব্বত ও তা’যীম-তাকরীমের সাথে পবিত্র লাইলাতুল বরাত পালন করে বাতিল ফিরক্বাদের প্রত্যাখ্যান করে। কিন্তু তারপরেও তাদের লাজ-শরম হয় না, তারা হিদায়েত হয় না। মূলত, এরা ঐ সম্প্রদায় যারা অন্ধ, বধির ও বোবা এবং যাদের অন্তরে মোহর পড়ে গেছে।
পবিত্র লাইলাতুল বরাত উনার ফযীলত, নাজাত ও বরকতের কথা, দোয়া কবুলের বা দোয়া দ্বারা স্বীয় তাক্বদীর পরিবর্তন করার কথা প্রায় সকলেই অবগত। তবে সে রাতেও গুনাহ মাফের প্রতি কঠোরতা আরোপ করা হয়েছে বা বিশেষ তওবার কথা যুক্ত করা হয়েছে। তাই এসব পাপীদের সম্পর্কে আমাদের সচেতন থাকতে হবে। কারণ তারা নিজেরা যেমন নিজেদের জন্য লা’নত, তার সাথে তারা সমাজেও অশান্তির কারণ ঘটায়। পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে এদেরকে বলা হয়েছে, নাম্মাম (চোগলখোর)। যারা ভালো লোকদের নামে, ওলীআল্লাহগণ উনাদের তথা যামানার মুজাদ্দিদ, মুজাদ্দিদে আ’যম আলাইহিস সালাম উনার বিরুদ্ধে অপপ্রচার করে, অপবাদ রটনা করে।
এদিকে ইঙ্গিত করে পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ব্যক্ত হয়েছে, “নিঃসন্দেহে মহান আল্লাহ পাক উনার বান্দাগণের মধ্যে উত্তম বান্দা হচ্ছে উনারা, উনাদেরকে দেখলে হৃদয়ে মহান আল্লাহ পাক উনার কথা মুবারক স্মরণ হয়। আর মহান আল্লাহ পাক উনার বান্দাগণের মধ্যে খারাপ বান্দা তারা, যারা চোগলখোরী ও কুটনামী করে বেড়ায়।” (পবিত্র আহমদ শরীফ ও পবিত্র বাইহাক্বী শরীফ)
তবে উল্লেখ থাকে যে, তাবৎ ধর্মব্যবসায়ী মালানারাও যদি যামানার মুজাদ্দিদ, মুজাদ্দিদে আ’যম আলাইহিস সালাম উনার বিরুদ্ধে একজোট হয়, তারা যদি তাদের বিরোধিতার মাত্রা আকাশ সীমা পর্যন্ত পৌঁছায়, তারা যদি নির্যাতনের রোলার সারা যমীনে বিস্তার করে তবু যামানার ইমাম ও মুজাদ্দিদ আলাইহিস সালাম তিনি চিন্তিত নন, শঙ্কাগ্রস্ত নন, পেরেশানীগ্রস্ত নন। সুবহানাল্লাহ!
কারণ হক্ব ও নাহক্বের দ্বন্দ্ব শুরু হয়েছে সৃষ্টির শুরু হতেই। প্রথম মানব, প্রথম নবী, প্রথম রসূল হযরত আদম আলাইহিস্ সালাম উনার সৃষ্টি মুবারক উনার পর হতেই ইবলিস উনার শত্রুতা করেছিল, অপবাদ রটনা করে বলেছিল, ‘হযরত আদম আলাইহিস সালাম উনার চেয়ে সে ভালো।’ নাউযুবিল্লাহ!
অর্থাৎ দুষ্টরা দুষ্টামি করবে, এমনকি নিজের ভাইয়েরও বিরোধিতা করবে এটাই স্বাভাবিক। আবু জাহিল, আবু লাহাব গং আপন আত্মীয় হওয়া সত্ত্বেও মহান আল্লাহ্ পাক উনার রসূল, সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার শরীর মুবারক-এ নামাযরত অবস্থায় উটের নাড়ি-ভুঁড়ি চাপিয়ে দিয়েছে। নাঊযুবিল্লাহ! তায়েফের ময়দানে বৃষ্টির মতো ইট-পাটকেল মেরেছে। নাঊযুবিল্লাহ! পাগল, যাদুকর, ধর্মত্যাগী ইত্যাদি অপবাদ দিয়েছে। নাঊযুবিল্লাহ! পাশাপাশি অর্থ-রাজত্ব-নারী ইত্যাদি সবকিছুর প্রলোভন দেখিয়েছে। নাঊযুবিল্লাহ! জবাবে মহান আল্লাহ্ পাক উনার হাবীব নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি বলেছেন, “তোমরা যদি আমার এক হাতে চাঁদ এবং অপর হাতে সূর্য এনে দাও, তবু আমি সত্য দ্বীন হতে এক চুল বিচ্যুত হবো না।” পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার পরিভাষায় এই অভিব্যক্তির নাম ‘ইস্তিক্বামত’। সুবহানাল্লাহ!
বলাবাহুল্য, যামানার ইমাম ও মুজাদ্দিদ, ইমামুল আইম্মা, মুহ্ইস্ সুন্নাহ্, কুতুবুল আলম, রাজারবাগ শরীফ উনার মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম তিনি পবিত্র নুবুওওয়াত উনার গুণে সমধিক গুণান্বিত থাকায় তিনি নিজেও বেমেছাল ইস্তিক্বামত উনার অধিকারী।
সুতরাং উলামায়ে ‘সূ’ তথা বিরোধিতাকারীদের এ ধারণা করার অবকাশ নেই যে, তারা যেখানে অপপ্রচারের বিষবাষ্প ছড়িয়ে ধুম্রজাল তৈরি করেছে অথবা বৃষ্টির মতো প্রস্তর বর্ষণ করেছে, দুনিয়াবী দৃষ্টিতে যেখানকার অবস্থা বিশেষ প্রতিকুল, জীবনের নিরাপত্তা যেখানে বাতাসের মতো ঠুনকো সেখানে বুঝি যামানার ইমাম ও মুজাদ্দিদ, মুজাদ্দিদে আ’যম আলাইহিস সালাম উনার তাজদীদের কাজ থমকে দাঁড়াবে।
মূলত, যামানার মুজাদ্দিদ, মুজাদ্দিদে আ’যম আলাইহিস সালাম তিনি সার্থক মেছদাক ওই পবিত্র আয়াত শরীফ উনার, “আপনারা চিন্তিত হবেন না, আপনারা পেরেশানীগ্রস্ত হবেন না, আপনারাই কামিয়াবী হাছিল করবেন যদি আপনারা মু’মিন হয়ে থাকেন।” সুবহানাল্লাহ!
নিশ্চয়ই যারা বলে, আমাদের পালনকর্তা মহান আল্লাহ পাক, অতঃপর তাতেই ইস্তিক্বামত থাকে, উনাদের কাছে হযরত ফেরেশ্তা আলাইহিমুস সালাম উনারা অবতীর্ণ হন এবং বলেন, “আপনারা ভয় করুন, চিন্তা করবেন না এবং আপনাদের প্রতিশ্রুত জান্নাতের সুসংবাদ শুনুন। ইহকাল ও পরকালে আমরা আপনাদের বন্ধু।”
অতএব, প্রতিভাত হয় যে, যামানার মুজাদ্দিদ এবং উনার তাজদীদী কাজে ফেরেশ্তা আলাইহিমুস সালাম নাযিল হওয়া, গায়েবী সাহায্য আসার বিষয়টি পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে বিবৃত ও স্বীকৃত।
স্মর্তব্য যে, উলামায়ে ‘সূ’রা অতি শীঘ্রই নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে। যামানার মুজাদ্দিদ, মুজাদ্দিদে আ’যম আলাইহিস সালাম উনার বিরোধিতা করার কারণে, উনার প্রতি মিথ্যা তোহমত দেয়া ও বিরোধিতা করার কারণে অতি শীঘ্রই খোদায়ী গযব তাদের গ্রেফতার করবে। যেমন, পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, “আপনার শত্রুরা নির্বংশ, নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে।” অন্যত্র ইরশাদ মুবারক হয়েছে, “সত্য এসেছে, মিথ্যা দূরীভূত হয়েছে। নিশ্চয়ই নিশ্চয়ই মিথ্যা দূরীভূত হওয়ার যোগ্য।” মূলত, মুজাদ্দিদে আ’যম আলাইহিস সালাম তিনি এ সত্যের ধারক-বাহক। খালিক্ব মালিক্ব রব মহান আল্লাহ পাক তিনি আমাদেরকে উনার ছোহবত মুবারকের মাধ্যমে সত্য পথ ও মতের অন্তর্ভুক্ত করুন। পবিত্র শা’বান শরীফ মাস তথা পবিত্র পবিত্র শবে বরাত উনার উসীলায় পরম করুণাময় মহান আল্লাহ পাক উনার কাছে এটাই আমাদের আন্তরিক চাওয়া।
খালিক্ব মালিক্ব রব মহান আল্লাহ পাক তিনি কবুল করুন। (আমীন)
দেশের খবর
শ্রীকাইল গ্যাস ফিল্ড নিয়ে ষড়যন্ত্র
পবিত্র লাইলাতুল বরাত শরীফ উপলক্ষে ৩ দিনের ছুটি ঘোষণা
‘চেয়ারে বসে নামায আদায় জায়িয নেই’-
ইসলামী ফাউন্ডেশনের এই সঠিক ফতওয়ার বিপক্ষে ধর্মব্যবসায়ীরা অপপ্রচার চালাচ্ছে
প্রধানমন্ত্রীর ব্যঙ্গচিত্র প্রচার করায় ছাত্রলীগ নেতা আটক
আনন্দবাজার প্রতিবেদন:
তিস্তার কারণেই মন্ত্রীত্ব হারান দীপু মণি!
হাই-ভোল্টেজ সফরে সঙ্গী মাত্র ২৪
ভারতের সঙ্গে ৩টি চুক্তির খসড়া মন্ত্রিসভায় অনুমোদন:
সংশোধিত অর্থনৈতিক অঞ্চল আইনের খসড়ার চূড়ান্ত অনুমোদন
মোদির আসন্ন সফরে তিস্তা চুক্তি হচ্ছেনা -সুষমা
ভারত কখনো বাংলাদেশের স্বার্থ নিয়ে ভাবেনি -এমাজউদ্দীন
‘কর্ণফুলী-হালদা বাঁচলে বাঁচবে দেশ’
বাজেট পেশ ০৪ জুন, পাস হবে ৩০ জুন
তিস্তাচুক্তি বাস্তবায়ন করলে সরকারের প্রশংসা করবে বিএনপি
হরতাল-অবরোধ বন্ধে আইন হচ্ছে না -আইনমন্ত্রী
মালয়েশিয়ায় উদ্ধার ৭১০ জনের তালিকা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে
পিরোজপুরে বোম্বাই মরিচ চাষ করে স্বাবলম্বী সহস্রাধিক পরিবার
নওগাঁয় বাদাম চাষ বাড়ছে
ভারতীয় ম্যাগি নুডলস-এ বিষাক্ত সীসা, সতর্ক বিএসটিআই
রাজধানীতে আজ সন্ধ্যা থেকে ফটকা-আতশবাজি নিষিদ্ধ
বিএনপি কঠিন অসুখে -হাছান মাহমুদ
পবিত্র রমযানে অফিস ৯টা থেকে বিকেল সাড়ে ৩টা
তদন্তে প্রকৃত আসামিদের বাদ দেয় পুলিশ -প্রধান বিচারক
“তবে কি একজন হিন্দুর থেকে শিখতে হবে-
মুসলমানদের বিয়ের বয়স কত হবে ?”
মানবপাচার চক্রের ২ সদস্য আটক, ১৭ ব্যক্তি উদ্ধার
অসহ্য গরমে অতিষ্ঠ রাজধানীবাসী
Anjuman-e Al Baiyinaat, Sweden
কবিতা






For the satisfaction of Mamduh Hazrat Murshid Qeebla Alaihis Salam
Site designed & developed by Muhammad Shohel Iqbal